ইতিহাসের সুন্দরতম আত্মহত্যা

130

জাকিয়া সুলতানা প্রীতি

এভিলিন ম্যাকহেল বিখ্যাত কোন ব্যক্তি ছিলেন না। তারপরও তার মৃত্যু ঠাঁই করে নিয়েছে ইতিহাসের পাতায়। তার মৃত্যুকে বলা হয়ে থাকে ইতিহাসের সুন্দরতম আত্মহত্যা

ক্যালিফোর্নিয়ার বার্কলি শহরে জন্মগ্রহণ করা এভিলিন কাজ করতেন নিউইয়র্ক শহরের একটি বইয়ের দোকানে। নিউইয়র্কেই এভিলিনের পরিচয় হয় ব্যারি রোডসের সাথে, যাকে পরবর্তীতে বিয়ে করার কথা ছিল তার। কিন্তু তা আর শেষ পর্যন্ত হয়ে ওঠেনি, বিয়ের এক মাস পূর্বে আত্মহত্যা করে বসেন এভিলিন।

১৯৪৭ সালের ১ মে এভিলিন নিউইয়র্ক শহরের এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিং-এর ৮৬তম ফ্লোরে পৌঁছান। সেখানে থাকা পর্যবেক্ষণ ডেকে গিয়ে তিনি পরনের কোট খুলে ফেলেন এবং তা সুন্দরভাবে রেলিংয়ে  ঝুলিয়ে দেন। এরপর ছোট্ট করে একটি সুইসাইড নোট লিখে ঝাঁপিয়ে পড়েন ৮৬ তলা থেকে!

এভিলিনের শেষ ইচ্ছা ছিল, কেউ যেন তার মৃতদেহ না দেখে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে তার শেষ ইচ্ছাটি পূরণ হয়নি, বরং হয়েছে তার উল্টো।
৮৬ তলা থেকে নিচে জাতিসংঘের একটি লিমুজিনের ওপর পড়ার চার মিনিট পর ফটোগ্রাফির একজন ছাত্র রবার্ট উইলস এভিলিনের মৃতদেহটির একটি ছবি তুলে রাখে। রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে যায় সেই ছবি।

এভিলিনের মৃতদেহের এই ছবিটিকে টাইম ম্যাগাজিন ইতিহাসের সুন্দরতম আত্নহত্যা হিসেবে উল্লেখ করে। তবে কী কারণে এভিলিন আত্মহত্যা করেছিলেন, তার সঠিক কারণ জানা যায়নি।

ছবিটিতে দেখা যায় লিমুজেনের ওপর শান্তভাবে শুয়ে আছেন এভিলিন। তার স্নিগ্ধ চেহারা দেখে মনে হচ্ছিল যেন মাত্রই ঘুমিয়ে পড়েছেন তিনি। তার পা দুটো মার্জিতভাবে একটির ওপর আরেকটি ওঠানো ছিল। গ্লাভসপরা একটি হাত আলতো করে রাখা ছিল বুকের ওপর, এবং সে হাতে শক্ত করে তিনি ধরে ছিলেন একটি মুক্তার নেকলেস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here