জাতীয় কন্যা শিশু দিবসে কৃতি কন্যার সম্মাননা পেলেন চ্যানেল আগামীর সদস্য সারা

46

নারীর স্বপ্ন পূরণ করতে, নারীর জীবন বাঁচাতে, সমাজের প্রতি দায়িত্ববোধ থেকে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন ‘নাসরিন আক্তার সারা’ নামের এই তরুণী। সদ্য কলেজ পড়ুয়া সারা স্বপ্ন দেখেন নিজ জেলা ঝালকাঠিকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করার। তিনি বলেন, ২০১৬ সালে স্বর্ণকিশোরী উপজেলা প্রধান ও ২০১৭ সালে ঝালকাঠি জেলা ব্রান্ডিংগার্ল (বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ) নির্বাচিত হওয়াতে আমার সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথ আরো সুগম হয়, সাহস ও আত্মবিশ্বাস পাই। ইতিমধ্যে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ও আমাদের প্রচেষ্টায় অসংখ্য বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছি। সারা আরও জানান, ঝালকাঠি জেলায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে, নারীর প্রতি সহিংসতা, ইভটিজিং, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা, কিশোরদের বয়ঃসন্ধি কাল ইত্যাদি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি নিয়মিত। সারা স্বপ্ন দেখেন নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে পরিবার সমাজের পাশে থাকার, বৈষম্যহীন, ধর্ষনমুক্ত, ইভটিজিংমুক্ত, বাল্যবিবাহমুক্ত, দারিদ্রমুক্ত কিশোর কিশোরীদের সুন্দর ভবিষ্যৎএর একটা শান্তিপূর্ন সচেতন বাংলাদেশের। অভিভাবকদের সাথে কিশোর কিশোরীদের বন্ধুত্বপূর্ণ আচরনের অভাব, কিছু অভিভাবকদের অসচেতনতার কারণ বাল্যবিবাহ বলে মনে করেন এই তরুণী।

‘আমরা সবাই সোচ্চার, বিশ্ব হবে সমতার’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঝালকাঠিতে বুধবার সমাবেশ, আলোচনা সভা এবং পাঁচ কৃতি কন্যাকে সম্মাননা প্রদানের মাধ্যমে জাতীয় কন্যাশিশু দিবস পালিত হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদফতর ডিসি অফিসের সুগন্ধা মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সহযোগিতায় ছিল- দি হাঙ্গার প্রজেক্ট। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আরিফুল ইসলাম এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের উপপরিচালক মোঃ আলতাফ হোসেনের সভাপতিত্বে ওসি ডিবি ইকবাল বাহার খান, মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের প্রোগ্রাম অফিসার নাছরীন আক্তার, টিআইবির সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন হিমু, শিক্ষক মানসুরা আক্তার, ৭১’র চেতনার সাধারণ সম্পাদক সৈয়দা মাহফুজা মিষ্টি, স্বর্ণকিশোরী নাছরিন আক্তার সারা, কিশোর-কিশোরী ক্লাবের ‘জেন্ডার প্রমোটার’ সালমা আক্তার ও শিক্ষার্থী সানজিদা আক্তার রিয়া আলোচনায় অংশ নেন। অনুষ্ঠানে সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তনে ভূমিকা রাখা ৫ কৃতি কন্যাশিশুর হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেয়া হয়। সংশ্লিষ্টরা হচ্ছে : নাছরিন আক্তার সারা, সৈয়দা মাহফুজা মিষ্টি, সানজিদা আক্তার রিয়া, মিম আক্তার ও বুশরা হক।যু্ব উন্নয়ন অধিদফতরের উপপরিচালক মিজানুর রহমান, প্রেস ক্লাব সহসভাপতি মানিক রায় এবং শিক্ষক, অভিভাবক ও কন্যাশিশুরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।