ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে হাল্ট প্রাইজ

75

হাল্ট প্রাইজ হলো একটি বিশ্বব্যাপী প্ল্যাটফর্ম যা বিশ্বের বৃহত্তম স্টুডেন্ট মুভমেন্ট হিসাবে স্বীকৃত এবং এটি বার্ষিক ৩০০,০০০ হাল্ট প্রাইজ প্রতিযোগিতা শিক্ষার্থীদের স্টার্টআপ আইডিয়া আনতে চ্যালেঞ্জ জানায় যা জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলিকে কেন্দ্র করে বিশ্ব সামাজিক সমস্যার সমাধান হবে। বিশ্বব্যাপী ১৫০০০ এরও বেশি ক্যাম্পাসে হাল্ট প্রাইজ অনক্যাম্পাস প্রোগ্রামের আয়োজন করা হয়। অংশগ্রহণকারীদের সাথে ১২১ টি দেশে পৌঁছেছে। এটি বিশ্বব্যাপী অনেক মিডিয়া সূত্র দ্বারা “নোবেল প্রাইজ ফর স্টুডেন্টস” শীর্ষক সম্মানজনক উপাধিও পেয়েছে।প্রতিযোগিতার পুরস্কারের অর্থ ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যা প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি “বিল ক্লিনটন” গ্র্যান্ড ফাইনালে নিউ ইয়র্কের ইউএন হেড কোয়ার্টারে হস্তান্তর করবেন।

এই প্রতিযোগিতায় প্রতিযোগীদের পেরোতে হয় চারটি পর্ব। কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশ থেকে মেধাবী শিক্ষার্থীদের দল হাল্ট প্রাইজে অংশ নিচ্ছে। বিশ্বের প্রায় লাখের বেশি শিক্ষার্থীর সঙ্গে লড়াই করে এ বছর ওর্য়াল্ড  ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো হাল্ট প্রাইজ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।২০২০- ২০২১ এর ক্যাম্পাস ডিরেক্টর হিসেবে আছেন বিবিএ ডিপার্টমেন্টের তাসিনা রিমা।

হাল্ট প্রাইজ একটি যা বছরব্যাপী প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে।এটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ধারণা প্রদান করে খাদ্য নিরাপত্তা, নিরাপদ পানির সরবরাহ, শক্তি এবং শিক্ষার মতো বিষয়গুলো নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক সমস্যার সমাধান করার। এবারের চ্যালেন্জ  হচ্ছে “Food for Good”.এ ছাড়া ডব্লিউইউবি  হাল্ট প্রাইজ এর পক্ষ থেকে কিছু সরাসরি সেমিনার সম্প্রচার করা হয়েছে। 

আমাদের স্পনসরশিপের জন্য রয়েছে  মিডিয়া পার্টনার , লার্নিং পার্টনার, ক্লাব পার্টনার, প্রোমোশন পার্টনার।

১৪ নভেম্বর আমাদের এডভাইসর প্যানেলের তালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে। চিফ প্যাটরন  হিসেবে আছে ডব্লিউইউবি এর সম্মানিত ভিসি প্রফেসর ডক্টর আবুল মান্নান চৌধুরী ,  চিফ এডভাইসর হিসেবে আছে প্রফেসর ডক্টর নুরুল ইসলাম,  এছাড়াও আছে ডক্টর সেলিম আহমেদ, জুবায়ের খালিদ লাবু, কাজি হাসান রবিন, উজ্জ্বল ইয়ামান চৌধুরী, প্রিয়াঙ্কা দাস ডোনা এবং শানাওয়াজ কামাল শাওন।

হাল্ট প্রাইজের ২০২১ সালের চ্যালেঞ্জ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে, অর্থনীতিতে উদ্দীপনা দেবে, পুনরায় কল্পনা করবে ২০৩০ সালের মধ্যে ১০,০০০,০০০ লোকের সংযুক্ত করার জন্য এবং এই ফলাফলের উন্নতি করার লক্ষ্য হাতে নিয়েছে। খাদ্য মানুষের অভিজ্ঞতা সংজ্ঞায়িত করে। পারিবারিক নৈশভোজ, ধর্মীয় উৎসব, দ্রুত কাজের বিরতিতে খাওয়া স্ন্যাকস এবং খাবারের সাথে আমাদের আরও অনেক সম্পর্ক যেমন আমাদের দেহ, আমাদের মন, আমাদের সম্প্রদায়। ক্রমবর্ধমান সাম্প্রতিক দশক ধরে, খাদ্য মাধ্যমগুলো যান্ত্রিকে পরিণত হয়েছে। হাল্ট প্রাইজের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে বেঁচে থাকার প্রয়োজনীয়তা থেকে খাদ্যকে যান্ত্রিকে রূপান্তরিত করা এবং এটা হবে মানবতার জন্য পরিবর্তন ও সমৃদ্ধি।