আবারো রাজনীতিতে ফিরছেন অমিতাভ!

148

ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর পর ১৯৮৪ সালে উত্তরপ্রদেশের এলাহাবাদ আসন থেকে লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হন অমিতাভ। রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী এইচ এন বহুগুণাকে হারিয়ে সাংসদও হন। কিন্তু সেই রাজনৈতিক জীবন দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। বছর তিনেকের মধ্যেই কুখ্যাত বোফর্স কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িয়ে যায় বিগ বচ্চনের নাম। সেই অভিযোগ থেকে আদালত তাকে মুক্তিও দেয়। কিন্তু তার অনেক আগেই রাজনীতিকে ‘নোংরা জায়গা’ আখ্যা দিয়ে কংগ্রেস ছাড়েন।

এরপর আরেক পারিবারিক বন্ধু অমর সিংহ-র সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা সূত্রে সমাজবাদী পার্টিকে কিছুদিন সমর্থন করেন। তবে প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে আর দেখা যায়নি তাকে। নরেন্দ্র মোদীর গুজরাট সরকারের বিজ্ঞাপনে কাজ করলেও বিজেপির সঙ্গে কখনোই ঘনিষ্ঠতার গুজব ওঠেনি।

কিন্তু এবার জল্পনা তৈরি হলো। আর সেটা ছেড়ে আসা দল কংগ্রেসকে নিয়েই। এর পেছনে কারণ আর কিছুই নয়, বিগ-বির টুইট অ্যাকাউন্ট। বাবা রাজীবের বন্ধু ছিলেন অমিতাভ। আর ছেলে রাহুলের টুইটার বন্ধু অমিতাভ। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর টুইটার তিনি অনেক আগে থেকেই ফলো করেন। কিন্তু এখন আর সব কংগ্রেস নেতাদের ফলো করতে শুরু করেছেন বিগ-বি। একই সঙ্গে কংগ্রেস দলের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টও ফলো করছেন তিনি।

সম্প্রতি পি চিদাম্বরম, কবিল সিব্বল, আহমেদ পটেল, অশোক গেহলট, অজয় মেকেন, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, শচিন পাইলট, সিপি জোশির মতো কংগ্রেস নেতাদেরও টুইটারে ফলো করছেন। বেশি দিন নয়, জানুয়ারি থেকেই এটা শুরু করেছেন তিনি।

টুইটারে অমিতাভ বচ্চনের মতো সুপারস্টারের ফলোয়ার সংখ্যা স্বাভাবিকভাবেই বিপুল। তিন কোটি ৩০ লাখের বেশি ফলোয়ার তার। তবে তিনি নিজে ফলো করেন মাত্র ১ হাজার ৬৮৯ জনকে। আর তার মধ্যেই কংগ্রেস নেতাদের সংখ্যা আচমকা বেড়ে গিয়েছে। আর তাতেই এখন নতুন জল্পনা অমিতাভ বচ্চনকে ঘিরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here